Home শিল্পাঞ্চলের বিশেষ স্বাধীনতা আন্দোলন ও রাষ্ট্রনায়ক সুভাষ চন্দ্র বসুর রানীগঞ্জ ভ্রমন

স্বাধীনতা আন্দোলন ও রাষ্ট্রনায়ক সুভাষ চন্দ্র বসুর রানীগঞ্জ ভ্রমন

0
স্বাধীনতা আন্দোলন ও রাষ্ট্রনায়ক সুভাষ চন্দ্র বসুর রানীগঞ্জ ভ্রমন

রানীগঞ্জ শিল্পাঞ্চলের স্বাধীনতা আন্দোলনে যোগদান ও ভূমিকা নিয়ে সেভাবে আলোচনা হয়নি কখনো, এ বিষয়ে যাবতীয় গুরুত্ব পেয়ে এসেছে কলকাতা ও তৎসংলগ্ন অঞ্চল। অথচ রানীগঞ্জ শিল্পাঞ্চল চিরকাল যে কোন আন্দোলনের রসদ যুগিয়ে এসেছে। সেই সব ইতিহাস আমরা মনে রাখার প্রয়োজন মনে করিনি। সেই সময় বিপ্লবীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল সরস্বতী কর্মমন্দিরের সদস্যদের।

তৎকালীন রানীগঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান ড. জ্যোতিষ চন্দ্র ঘোষের মাধ্যমে চলতো বিপ্লবীদের সাহায্য। সেই সুবাদে রানীগঞ্জ আসেন গান্ধিজী থেকে দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস অনেকেই। পরবর্তীকালে সেখানে আসেন দেশবন্ধুর ভাবশিষ্য রাষ্ট্রনায়ক সুভাষ চন্দ্র বোস। রানীগঞ্জে নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু ১৯৩৮ সালে ডিসেম্বর মাসে এসেছিলেন এবং একটি সমাবেশ করেছিলেন স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য। প্রথমেই তিনি এসে উঠেন ড.জ্যোতিষ চন্দ্র ঘোষের চুড়িপট্টির সন্নিকটে। কথিত আছে তারপর তিনি রানীগঞ্জ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মাঠে বিকেল ৪:৩০ টা থেকে ৮:৩০টা অবধি চার ঘন্টা ব্যাপী এক বিশাল জনসমাবেশে ভাষণ দেন। সুভাষচন্দ্রের বক্তৃতার আগে এক বিশাল অনুষ্ঠানে বিপ্লবী ধীরেন্দ্রনাথ বসু, হরিকিংকর পান্ডে, শংকর মন্ডল, কাশীনাথ সিংহ প্রমুখ শারিরীক কসরত দেখান। ধীরেনবাবুর কসরত দেখে সুভাষ তার প্রশংসাও করেন। তারপর তিনি ফিরে আসেন স্কুল পাড়ার গান্ধী স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের সন্নিকটের একটি বাড়িতে। সেখানেই তিনি রাত্রিবাস করেন। ঠিক তারপরের দিনই চাঁদা সংগ্রহ করেই সুভাষ বসু পুরুলিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

স্বাধীনতা আন্দোলনে রানীগঞ্জের কীর্তিকাহিনীর কোন সংগঠিত লিপিবদ্ধ ইতিহাস নেই। সেইজন্য সেই সময়ে যারা অংশগ্রহন করেন তাঁদের সবার পরিচয় সেভাবে জানা যায়নি।

(সংক্ষিপ্ত)
–সম্রাট কর (সহযোগিতায় শিক্ষিকা করবী রায়)

তথ্য প্রাপ্তিঃ আসানসোল হেরিটেজ সিনার্জিস- অধ্যাপক ড. শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় ( অধ্যাপক, দাপ্তরিক প্রধান, ইংরাজি বিভাগ, কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়)

★ তাছাড়াও ড. জ্যোতিষ চন্দ্র ঘোষের নাতি ঘোষ মশায়ের কাছে জানতে পারি, সেইদিন নেতাজীর সেই বাড়িতে এসে ছবি তুলেছিলেন। কিন্তু ব্রিটিশদের চাপে সেই ছবি বড়োবাজারে বড়ো কালীমন্দিরে কালী প্রতিমার পেছনে রাখা ছিলো, পরবর্তীকালে তা হারিয়ে গিয়েছিল।

  1. (ছবিঃ তৎকালীন রানীগঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান ড. জ্যোতিষ চন্দ্র ঘোষের বাড়ি যেখানে নেতাজী এসেছিলেন সেই ঐতিহাসিক বাড়ির ছবি তুলে ধরা হলো। প্রসঙ্গত, স্কুলপাড়ার বাড়িটির ছবি আমার কাছে নেই)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here